মুন্সীগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে নতুন বই উৎসব ২০২৩ অনুষ্ঠিত

মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেনঃঃ আজ ১লা জানুয়ারি ২০২৩ ইংরেজি নববর্ষে মুন্সীগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে নতুন বই বিতরণ উৎসব ২০২৩ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত বই বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ নাজমুল হাসান সোহেল, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের কার্যকরী পরিষদের সদস্য মোঃ আজাহার হোসেন, হাজী বাচ্চু মিয়াসহ আরো অনেকে। বছরের প্রথম দিন আজ মুন্সীগঞ্জসহ সারাদেশে নতুন বছরে বই বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে । তবে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে নতুন বই। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বই উৎসবের আমেজ থাকলেও নতুন বই বিতরণ উপলক্ষে বই নিতে আসা শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছিল উচ্ছ্বাস। শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের ব্যস্ততার পাশাপাশি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নতুন বই পাওয়ার আগ্রহ লক্ষ্য করা গেছে। এবারের শিক্ষাবর্ষে শিক্ষার্থীর মাঝে পাঠ্যপুস্তক বিনামূল্যে বিতরণ করা হচ্ছে। এ বছরের প্রথমদিনে সব শিক্ষার্থীকেই বই দেওয়া সম্ভব হয়নি। বই বিতরণ চলবে কয়েকদিন। পর্যায়ক্রমে নতুন বই পাবে শিক্ষার্থীরা। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের নির্দেশনা অনুযায়ী, ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত ১লা জানুয়ারি বই বিতরণ করা হয়।

Open photoবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আক্তার হোসেনের সভাপতিত্ত্বে এবং সহকারি প্রধান শিক্ষক জনাব মোহাম্মদ মিজানুর রহমান সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মোঃ ছফিউল্লাহ, মোঃ আব্দুস সাত্তার, আকতাার জাহান, মোঃ আব্দুল হান্নান, জোতির্ময় বাড়ৈ, ইমাম হোসেন, আফছানা বেগম, মোঃ মুফিজুর রহমান, নৃপেন্দ্র কুমার মন্ডল, মোসাম্মৎ হাসনেয়ারা বেগম, মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, দিলারা আক্তার, গাজী আসিফ আফসার রিয়েল, নুরুন্নাহার বেগম, ফাতেমা বেগম, সমপিতা দে, নুসরাত জাহান, শিলা আক্তার, মিরু আক্তার, জান্নাতুল ফেরদৌস ও কর্মচারীসহ প্রমূখ।
করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে গত দুই বছর বই উৎসব হয়নি। করোনা নিয়ন্ত্রণে আসায় আজ রোববার নতুন শিক্ষাবর্ষের প্রথম দিনে সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোয় উৎসব করে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনা মূল্যে পাঠ্যবই তুলে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)।
সারা দেশে সব মিলিয়ে প্রায় চার কোটি শিক্ষার্থীকে নতুন বই দেওয়া হবে। এবার মাধ্যমিকের পাঠ্যপুস্তক উৎসব হচ্ছে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার কাপাসিয়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ে। আর প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্য বই উৎসব হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলার মাঠে। এখানে এসে দেখা গেছে বই বিতরণ উৎসবের আয়োজন শেষ করা হয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যে শুরু হবে উৎসব।
তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল শনিবার ২০২৩ শিক্ষাবর্ষের বিনা মূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন।
এবার প্রাথমিকে ৯ কোটি ৬৬ লাখ ৮ হাজার ২৪৫টি এবং মাধ্যমিকে ২৩ কোটি ৮৩ লাখ ৭০ হাজার ৫৮৮টি বই ছাপানো হচ্ছে। এনসিটিবির সূত্রমতে, গতকাল বিকেল পর্যন্ত প্রাথমিকে ৭ কোটি ৫০ হাজারের কিছু বেশি বই ছাপা হয়েছে। তবে ছাপার পর আনুষঙ্গিক কাজ শেষে উপজেলা পর্যায়ে গেছে ৬ কোটি ৭৭ লাখের বেশি বই। অন্যদিকে মাধ্যমিকে ১৯ কোটি ২২ লাখের বেশি বই ছাপা হয়েছে। এর মধ্যে উপজেলা পর্যায়ে গেছে ১৭ কোটি ৭৯ লাখের বেশি বই।
এসব তথ্য বলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোয় উৎসব হলেও আজ বছরের প্রথম দিনে সব শিক্ষার্থী সব বই হাতে পাবে না। নানামুখী জটিলতায় এবার ছাপার কাজ পুরোপুরি শেষ না হওয়ায় বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী কয়েকটি করে বই পাবে।
গতকাল শনিবার বিকেল পর্যন্ত প্রাথমিকের প্রায় ২৭ শতাংশ এবং মাধ্যমিকের ১৯ শতাংশের মতো বই ছাপাই হয়নি।
এনসিটিবির চেয়ারম্যান মো. ফরহাদুল ইসলাম গতকাল বলেন, পাঠ্যপুস্তক উৎসবের কোনো ঘাটতি হবে না। উৎসবের জন্য সব জায়গাতেই বই গেছে এবং সব শিক্ষার্থীই নতুন বই হাতে পাবে। তবে শতভাগ বই দিতে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত লেগে যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *